logo



আমার প্রিয় লেখা



আমার ছবিঘর



অনলাইনে আছেন

আব্দুল্লাহ-আল-নোমান এর নতুন বন্ধু নাজমুল


আমাদের সাথে আছেন ৫৮ জন অতিথী
  

আব্দুল্লাহ-আল-নোমান এর অনলাইন ডায়েরী

আপনাদের সকলের উপর আল্লাহর শান্তি, রহমত এবং বরকত বর্ষিত হোক

ডায়েরী লিখছেন ৭ বছর ৯ মাস ২৪ দিন
মোট পোষ্ট ৬১টি, মন্তব্য করেছেন ১৫৪টি


মেড ইন রাজশাহী (১)

লিখেছেন : আব্দুল্লাহ আল মামুন       তারিখ: ১৩-০৪-২০১০



রাজশাহী কে তথ্যপ্রযুক্তি নগরী করার ব্যপারে অনেক রাজশাহীবাসীর উতসাহ ইদানীং লক্ষনীয়। কিন্তু আমি কিছুটা বিভ্রান্ত এই জন্য যে কেন কেউই পরিস্কার করে বলছেন না তথ্যপ্রযুক্তি নগরী আর সাধারন নগরী এর মধ্যে পার্থক্য কি এবং ঠিক কি কি ধাপ পার হলে এই লক্ষে পৌছানো যাবে?

কিছুদিন আগে “আমাদের রাজশাহী” ওয়েবপেজ এর সাক্ষাতকার বিভাগে জনাব এম এ সবুর এর কিছু উতসাহব্যঞ্জক কিন্তু বাস্তবধর্মী মন্তব্য পড়লাম। অনেককেই দেখেছি জনাব সবুর কে অনুরোধ করেছেন যেন উনি রাজশাহীকে আইটি নগরী হিসাবে গড়ে তোলার জন্য সাহায্য করেন। এখন প্রশ্ন হচ্ছে যে উনার (এবং অন্যান্য সকল রাজশাহীবাসীর) কাছে আমাদের ঠিক কি সাহায্য প্রয়োজন? উনাদের মতো ব্যস্ত পেশাজীবিদের কাছে যদি আমরা পেশাদারীত্বের সাথে আমাদের চাহিদা তুলে না ধরতে পারি, তবে শুধু আন্তরিকতা তেমন কোন কাজে আসবে না। এই জন্য আগে আমাদের কিছু সহজ প্রশ্নের উত্তর আগে তৈরী রাখতে হবে। প্রশ্নগুলি হলো

১) আই টি নগরী বলতে আমরা ঠিক কি বুঝাতে চাচ্ছি?
২) কেন আমরা রাজশাহীকেই আই টি নগরী করতে চাচ্ছি?
৩) রাজশাহী কে ঠিক কি কি ধাপের মাধ্যমে আই টি নগরী করতে চাচ্ছি?

এখানে আমার সামান্য বিস্তারিত আলোচনার চেষ্টা করছি।

১) আই টি নগরী বলতে আমরা ঠিক কি বুঝাতে চাচ্ছি?
নগরী বলতে আমরা বুঝি যে লোকালয়ে বসবাসকারী রা জন্ম নেয়, লালিত পালিত হয়, বিকশিত হয়, বসবাস করার আধুনিক সুযোগ সুবিধা আছে, যেখানে ভিন্ন লোকালয়ের বসবাসকারী উচ্চমান সম্পন্ন বিভিন্ন সেবা নিতে বা পন্য আদান প্রদান করতে ভিড় করে । নগরীর অধিবাসীদের সামনে এগিয়ে যাবার সুনির্দিষ্ট লক্ষমাত্রা থাকে। এই অগ্রসরতাই নগরী আর সাধারন লোকালয়ের মৌলিক পার্থক্য (ভুল হলে সমাজ বিজ্ঞানের ছাত্র ছাত্রী রা দয়া করে ঠিক করে দিবেন।)। আর যখন কোন নগরী বিশেষ কোন স্থান, সেবা বা পন্যের জন্য সমাদৃত হয়, তখন ওই নগরীকে ওই বিশেষ বিষয়ের নামে বিশেষায়িত করা হয়। যেমন যুক্তরাষ্ট্রের উত্তর ক্যালিফোর্নিয়ার সান ফ্রান্সিকো কে সিলিকন ভ্যালি বলা হয় এই জন্য যে সেখানে যুক্তরাষ্ট্রের অন্যান্য এলাকার চেয়ে অনেক বেশি পরিমানে সিলিকন নির্ভর চিপ (chip) নির্মাতা ও গবেষনা প্রতিষ্ঠান রয়েছে। এই নির্মান ও গবেষনা বৈশিষ্টের অনুপ্সথিতির জন্যই সাহারা মরুভুমিকে (বালুর মুল উপাদান সিলিকন) সিলিকন ভ্যালি (বালুর মুল উপাদান সিলিকন) বলা হয় না।

এতোদিন শুনে এসেছি রাজশাহী হচ্ছে শিক্ষা নগরী
। কেঊ কি আছেন যে এই গালভরা শব্দটির ইতিহাস সমন্ধে একটু আলোকপাত করতে পারেন? আমি জানি না কেন এই নাম? রাজশাহীতে শিক্ষার যে সমস্ত সুযোগ সুবিধা আছে তা ঢাকা, চট্টগ্রাম এবং ময়মনসিংহে আগে থেকেই ছিলো। ময়মনসিংহে সম্পুর্ন আলাদা কোন প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় না থাকলে ও বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে খুবই স্বয়ংসম্পুর্ন কৃষি প্রযুক্তি অনুষদ ( চার বছর মেয়াদী স্নাতক থেকে পিএইচডি –পর্যন্ত) প্রায় স্বাধীনতার কাছাকাছি সময় থেকেই ছিলো। কিছুদিন আগ পর্যন্ত ও রাজশাহী প্রযুক্তি কলেজ কি কোন বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীন ছিলো না? শিক্ষা নগরী নামের কারনে রাজশাহী থেকে স্নাতক বা স্নাতকত্তোর কোন ছাত্র ছাত্রী কি চাকুরী বা পেশাগত কোন ক্ষেত্রে বিশেষ কোন সুবিধা পেয়েছে? বরং সুযোগ পেলেই বিভিন্ন আমলা, চিকিতসক বা প্রযুক্তিবিদের নামে সাইনবোর্ড এ মোটা অক্ষরে লিখে দেন যে উনি ঢাকার কোন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান থেকে পড়াশুনা করেছেন। খোদ রাজশাহীবাসিরাই ঐ সাইনবোর্ড দেখে আপ্লুত হন।

আবার মুখে যতই সালাম দেই না কেন, শিক্ষকদের বেতন বা সন্মানী আমরা (এবং পৃথিবির সমস্ত অনুন্নত দেশ) কম দিতেই সাচ্ছন্দ্য বোধ করি। এই জন্য স্বল্প আয়ের শিক্ষক যখন বাজারে যেয়ে বাধ্য হয়েই দামদর শুরু করেন, তখন পরিচিতজনেরা বলে উঠেন “ মাষ্টার মানুষ হয়ে ও যদি আপনি দামদর করেন তাইলে কই যাই?” বরই আশ্চর্য নয় কি?

আমার ধারনা কোন চিন্তাশীল রাজশাহীবাসী হয়তো দাবী তুলেছিলেন যে রাজশাহীতে কিছু বিনিয়োগ বাড়ানো হোক, কিছু শিল্প কারখানা করা হোক, তখন হয়তো এই গালভরা শব্দটির (শিক্ষা নগরী) উদ্ভব। কারন শিক্ষা নগরীতে শিক্ষক ও শিক্ষিত মানুষ থাকবেন, তাদের আর টাকার দরকার কি?

আবার রাজশাহীকে কেউ কেঊ রেশমের নগরী বলেন। আমরা রাজশাহীবাসিরা নিজেরা কি রেশমী কাপড় কেনার সময় রাজশাহীর রেশম কেনার প্রতি আগ্রহ দেখাই? নাকি ভিনদেশী নায়ক নায়িকাদের নামের ভিনদেশী রেশমী কাপড়ের মালিকানা আমারা সগর্বে ঘোষনা করি। ফলাফল বলার অপেক্ষা রাখে না। রাজশাহী সিল্ক আজ একরকম বিলুপ্ত। আর রেশম গবেষনার কথা না হয় নাই বললাম। কিন্তু রাজশাহীতে বিদেশী রেশম নির্ভর কারখানা এখনও চালূ আছে। ফলে রেশমের নগরী আজ আরেকটি গালভরা শব্দ মাত্র।

তাই আমার প্রশ্ন আইটি নগরী মানে কি? এর মানে কি এখানে কতগুলো কম্পিউটার কোচিং সেন্টার থাকবে যেখান থেকে পাশ করে ছাত্ররা মাইক্রোসফট অফিস এবং মাইক্রোসফট ওয়ার্ড এর পার্থক্য বুঝবে না, VBA কি খায় না পিন্দে বুঝবে না, ম্যাক্রো ভাইরাস সর্তকবানী আসে বলে নিজেরা কোন ম্যাক্রোই ব্যবহার করবে না? হার্ডওয়্যার প্রোগ্রামিং বলতে বুঝবে NASA র রকেট নিয়ন্ত্রন কিন্তু কোন প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষাবিহীন রাস্তার পাশের ছোট্ট একটা বৈদ্যুতিক কারিগর যখন নিজস্ব মেধায় কোন যন্ত্র বানাবে তখন আমারা বলবো “গরীবের আবার ভীমরতি”। রাজশাহীর কোন ছেলে বা মেয়ে বা প্রতিষ্ঠান রাজশাহীতে যদি কোন যন্ত্র বা সেবা তৈরী করে এবং তার গায়ে সাটানো থাকে “মেড ইন রাজশাহী” তবে কি সবার আগে আমরা সেটা বাজারে অন্যান্য বিদেশী (হোক না সস্তা ও রংগীন) সমধর্মী কোন যন্ত্র বা সেবার আগে প্রাধান্য দেব? আমরা নিজেরা কি মানষিক ভাবে সেই স্থানীয় প্রযুক্তির পেছনে পকেটের পয়সা খরচ করতে মানষিক ভাবে প্রস্তুত? উত্তর যদি না হয় তবে খোদ দেবরাজ ও রাজশাহী বাসিকে নতুন আরেকটি গালভরা শব্দ ছাড়া আর কিছুই দিতে পারবেন না।

তাই আগে আমাদের নিজেদের নিজেদেরকে সন্মান করতে শিখতে হবে, ভালো মন্দের পার্থক্য এবং এদের সীমানা জেনে লক্ষমাত্রা ঠিক করে এগিয়ে যেতে হবে। .....

৩৬০১ বার পঠিত

 
১৩-০৪-২০১০
আব্দুল্লাহ-আল-নোমান বলেছেন:
খুবই গুরুত্তপুর্ন পোষ্ট, ধন্যবাদ আব্দুল্লাহ আল মামুন।
পোষ্টটিকে স্টিকী করার জন্য অনুরোধ জানাচ্ছি।


১৩-০৪-২০১০
আলম বলেছেন: পোষ্টের গুরুত্ব বিবেচনা করে পোষ্টটি স্টিকি করতে অনুরোধ করছি।


১৩-০৪-২০১০
মোঃ তরিকুল আলম বলেছেন: অতি চমৎকার ও গুরুত্তপুর্ন একটি পোষ্ট।

পোষ্টটাকে স্টিকী করা হোক।


১৩-০৪-২০১০
মোঃ ফজলে রাব্বি নিঝুম বলেছেন:
অসাধারন তথ্যযুক্ত পোষ্ট।

পোষ্টের গুরুত্ব বিবেচনা করে পোষ্টটি স্টিকি করতে অনুরোধ করছি।


১৩-০৪-২০১০
আলম বলেছেন: লেখকের প্রতি অনুরোধ থাকবে সুযোগ সুবিধামতো যত দ্রুত সম্ভব পরের লেখা গুলো পোষ্ট করার জন্য।

রাজশাহীকে বলা হয় শিক্ষা নগরী। এই গাল ভরা শ্রুতিমধুর পদবী দিয়ে আর কিছুই নয় রাজশাহীর নিরীহ জনগনকে এক প্রকার ধোকা দেয়া হয়। রাজশাহীতে যে পরিমান এবং যত ধরনের শিক্ষা প্রতিষ্ঠান রয়েছে তা বাংলাদেশের অন্যান্য বিভাগীয় শহরেও রয়েছে। ক্ষেত্র বিশেষে এর থেকে বেশি রয়েছে। ঢাকার ফামর্গেট এলাকায় যত কোচিং সেন্টার রয়েছে তা সমগ্র রাজশাহীতেও নাই। তাহলে কেন এই ধোকাবাজী??? এটি মুলত "ঢাল নেই তলোয়ার নেই, নিধিরাম সরদার" টাইপ। সমগ্র রাজশাহী বিভাগে না আছে কোন বড় কল-কারখানা আর না আছে আয়ের ভালো কোন পথ। আমাদেরকে শিক্ষা নগরী ঘোষনা দিয়ে এমন একটা ভাব করা হয় যেন শিক্ষার মতোন এক মহান পেশার সাথে আমরা জড়িত, আমাদের অন্য কাজ আর না করলেও চলবে, পেটে ভাত নাই কিন্ত ছাত্রের সালাম নিয়ে পেট ভরাতে হবে।


১৩-০৪-২০১০
রাজশাহী আইটীর কর্মী বলেছেন:
খুবই গুরুত্তপুর্ন পোষ্ট,
ধন্যবাদ ------
আব্দুল্লাহ আল মামুন।


১৩-০৪-২০১০
আব্দুল্লাহ আল মামুন বলেছেন: পাঠকদের প্রতি বিনীত অনুরোধ রইলো যে শুধু মনের আক্ষেপ বা উচ্ছাস্ প্রকাশ না করে কিছু অর্জনযোগ্য লক্ষ্যমাত্রার প্রতি আলোকপাত করুন। যেমন

সমস্যাঃ রাজশাহীতে তেমন কোন আবহাওয়া কেন্দ্র নাই যেখান থেকে সাধারন রাজশাহীবাসি সহজ়ে আগামীকালের ঝড় বৃষ্টির সংবাদ পেতে পারেন।

সমাধানঃ
ধাপ ১) এই ক্ষেত্রে রাজশাহীর কেবল টেলিভিশন কোম্পানী গুলো এগিয়ে আসতে পারেন। তারা প্রাথমিক ভাবে ইন্টারনেট থেকে রোজকার আবহাওয়ার সংবাদ লাইভ ভিডিও ফুটেজ হিসাবে দিনে কয়েকবার প্রচার করতে পারেন। আমার মনে হয় এই তথ্য স্থানীয় পরিবহন মালিক সমিতি, স্থানীয় কৃষি, বিভিন্ন কমুনিটি সেন্টার এবং পর্যটন ব্যবসার জন্য মুল্যবান।

ধাপ ২) রুয়েট, রাবি এবং পলিটেকনিক ইনষ্টিটিউট দাপিয়ে বেড়ানো রাজশাহীর তারকারা খুব সহজেই কয়েক বছরের স্থানীয় উপাত্ত ব্যবহার করে একটি নির্ভরযোগ্য ও বিশেষায়িত আবহাওয়া পুর্বাভাষের গানিতিক মডেল তৈরী করতে পারেন। পাশাপাশি খুবই সাধারন মাইক্রোকন্ট্রোলার এবং স্থানীয় বাজারে সহজলভ্য সেন্সর ব্যবহার করে একটি আবহাওয়া উপাত্ত সংগ্রাহক (weather data logger) তৈরী করবেন। এই দুটিকে জোড়া দিলেই পরিপুর্ন আবহাওয়া পুর্বাভাষ ব্যবস্থা তৈরী। এটা প্রাথমিক ভাবে একটা শিক্ষামুলক প্রকল্প হিসাবে শুরু করা যেতে পারে।

ধাপ ২) তথ্যের মান এবং গ্রহনযোগ্যতা সন্তোস জনক হলে এই সেবা বিক্রি করা ও সম্ভব।(ধাপ ১ এ)।

এবং সর্বোচ্চ দুই মাসের এই প্রকল্প সমাধানের জন্য সরকার কে ধর্না দেবার কোনই দরকার নেই। তবে প্রকল্প টার শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত একটা সমন্বয় ব্যবস্থা দরকার।



১৩-০৪-২০১০
আব্দুল্লাহ বলেছেন:

আমাদের সীমানা জেনে লক্ষমাত্রা ঠিক করে এগিয়ে যেতে হবে।
ধন্যবাদ----আব্দুল্লাহ আল মামুন।


১৪-০৪-২০১০
আবু জাফর মো: শামসুদ্দিন বলেছেন: মামুন ভাইয়া খুবই গুরুত্তপুর্ন পোষ্ট দিয়েছেন । আশাকরি এমন আরও পোষ্ট দিয়ে আমাদের সাহায্য করবেন ।


১৫-০৪-২০১০
মোঃ সাইদুর রহমান ( রেন্টু ) বলেছেন:
পোষ্ট টা সবার চোখে আনার জন্য, হোম পেজে রাখা দরকার। যাতে লিখাটা সবার নজরে আসে। এক কথায় পোষ্টের গুরুত্ব বিবেচনা করে পোষ্টটি স্টিকি করতে অনুরোধ করছি।
অনেক বাস্তব কথা যুক্তির মাধ্যমে লেখক তুলে ধরেছেন, তার জন্য ধন্যবাদ।





১৫-০৪-২০১০
নিঝুমদ্বীপ বলেছেন: তথ্যপ্রযুক্তি নগরী মানেকি ডিজিটাল বাংলাদেশ নাকি যদি তাই হয় তহলে বিষয়টা খুবি সোযা।রাজশাহী গেট বলে যদি কিছু থাকে সেখানে একটা ডিজিটাল ঘরি লাগিয়ে দিলেই ডিজিটাল রাজশাহী হয়ে যাবে।:D


১৫-০৪-২০১০
রিফাত বলেছেন: গুরুত্তপুর্ন একটি পোষ্ট। অনেক বাস্তব কথা যুক্তির মাধ্যমে তুলে ধরার জন্য লেখককে আন্তরিক ধন্যবাদ।


১৫-০৪-২০১০
সপনোবাজ বলেছেন: ভালো পুসট
একটা সমন্বয় দরকার
+ দিলাম বস........।


১৭-০৪-২০১০
মো: জাকিউর রশিদ সন্জু বলেছেন:

গুরুত্তপুর্ন একটি পোষ্ট।

অনেক বাস্তব কথা যুক্তির মাধ্যমে তুলে ধরার জন্য লেখককে আন্তরিক ধন্যবাদ।



২৬-০৯-২০১০
মোঃ তরিকুল আলম বলেছেন: পোষ্টটিকে স্টিকী করার জন্য ধন্যবাদ।


২৭-০৯-২০১০
আবু জাফর মো: শামসুদ্দিন বলেছেন: গুরুত্তপুর্ন একটি পোষ্ট।


২৩-০৩-২০১১
মো:ইমরান আরাফাত খান বলেছেন: আমি অনকে দিন পরে পোষ্টটি পড়লাম। পড়ে খুব ভাল লাগল । কথাগুলো একেবারে বাস্তব


২৩-০৩-২০১১
মো:ইমরান আরাফাত খান বলেছেন: আমি অনকে দিন পরে পোষ্টটি পড়লাম। পড়ে খুব ভাল লাগল । কথাগুলো একেবারে বাস্তব


মন্তব্য করতে লগিন করুন।
  

সাম্প্রতিক মন্তব্য







ছবিঘরের নতুন ছবি